ইসলামী জীবন-ধারা আবদুল হামীদ ফাইযী ৩০ টি অধ্যায় ৩১৪ টি অনুচ্ছেদ সম্পূর্ণ বইটি একসাথে পড়তে
ইসলামী জীবন-ধারা আবদুল হামীদ ফাইযী ৩০ টি অধ্যায় ৩১৪ টি অনুচ্ছেদ সম্পূর্ণ বইটি একসাথে পড়তে
অধ্যায় ও অনুচ্ছেদ তালিকা
পানাহারের আদব অনুচ্ছেদ ২৯ টি পানাহারের আদব বিষয়ে কিছু কথা ১। সোনা-চাঁদির পাত্রে খাওয়া বৈধ নয় ২। অমুসলিমদের পাত্রে (তাদের দোকান ও হোটেলে) খাওয়া নিষেধ ৩। ঠেস বা হেলান দিয়ে খাওয়া অপছন্দনীয় কাজ ৪। খাবার সময় খাবার প্রস্ত্তত হয়ে গেলে এবং সলাতের সময় এসে উপস্থিত হলে আগে খাবার খাবেন, তারপর সলাতে যাবেন। যাতে সলাতের একাগ্রতা নষ্ট না হয়। ৫। খাবার শুরু করার আগে ও পরে উভয় হাতকে ধুয়ে নিন ৬। খাবার শুরু করার আগে ‘বিসমিল্লাহ’ বলুন এবং শেষ করার পর আল্লাহর প্রশংসা করুন ৭। পানাহার করুন ডান হাতে। দুই হাতে খাবার ধরতে হলেও একটার পর একটা ডান হাতে নিয়েই খান। বাম হাতে খাবেন না ৮। খাবার (এক শ্রেণীর হলে) পাত্রের এক ধার থেকে খান, নিজের পার্শ্ব থেকে খান। খাবার পাত্রের মাঝখান হতে খাওয়া উচিত নয় ৯। সুন্নাত হল তিনটি আঙ্গুল (বৃদ্ধা, তর্জনী ও মধ্যমা) দ্বারা (রুটি, খেজুর প্রভৃতি) খাবার খাওয়া ১০। খাবার শেষে আঙ্গুল ও প্লেট চেঁটে খান। তারপর মুছে অথবা ধুয়ে ফেলেন ১১। খাদ্যাংশ নিচে পড়ে গেলে তা পরিষ্কার করে খেয়ে ফেলা কর্তব্য ১২। খাবার জিনিস গরম থাকলে খেতে শুরু না করে খাবার মত ঠাণ্ডা হলে খেতে শুরু করুন ১৩। খাদ্য ও পানীয়তে ফুঁ দিয়ে খাবেন না ১৪। খাবার যেমনই হোক তার কোন দোষ বর্ণনা করতে হয় না ১৫। পানি কখনই দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পান করবেন না; বরং বসে বসে পান করবেন ১৬। এক নিঃশ্বাসে পানি পান না করে অন্তত তিন নিঃশ্বাসে পান করবেন ১৭। সরাসরি মশক বা কলসীর মুখে মুখ লাগিয়ে পানি পান করবেন না ১৮। আপনি যদি অপরকে পানাহার করান, তাহলে আদব ও মুস্তাহাব হল যে, আপনি সবার শেষে খাবেন ১৯। খেতে খেতে কথা বলা নিষেধ নয় ২০। জামাআতবদ্ধভাবে এক পাত্রে খাওয়া মুস্তাহাব ২১। অপর মুসলিমের সাথে খেতে এঁটো খাওয়া দূষণীয় নয় ২২। এক পাত্রে একাধিক লোক খেলে খাবার সময় মনের ভিতর হিংসা রাখবেন না ২৩। যদি আপনাকে কেউ খেতে ডাকে ২৪। আপনার খানা যদি খাদেম প্রস্ত্তত করে, তাহলে সেই খাবারে খাদেমকেও শরীক করুন ২৫। এমন টেবিল, দস্তরখান বা মজলিসে বসে খাবেন না, যে মজলিসে মদ বা অন্য কোন হারাম জিনিস খাওয়া হয় ২৬। জামাআতে সবারই খাওয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত খাবার হতে হাত না তোলা ২৭। জুতো পায়ে রেখে খাওয়া অবৈধ নয় ২৮। পেটুকদের মত ভরপেট এত খাওয়া খাবেন না, যাতে নড়তেই না পারেন পেশাব-পায়খানার আদব অনুচ্ছেদ ১৭ টি পেশাব-পায়খানা ও বাতকর্ম থেকে রাজকর্ম পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষা রয়েছে ইসলামে ১। যেখানে মানুষে গন্ধ পাবে, যেখানে মানুষের পায়ে লাগবে, যেখানে মানুষ গালি ও অভিশাপ দেবে সেখানে পেশাব-পায়খানা করবেন না ২। বদ্ধ পানিতে পেশাব করা নিষেধ ৩। পেশাব-পায়খানার জায়গা বা ঘরে এমন কোন জিনিস নিয়ে প্রবেশ করবেন না, যাতে মহান আল্লাহর নাম উল্লেখ আছে ৪। পেশাব-পায়খানার সময় কিবলার দিকে মুখ বা পশ্চাৎ করে বসবেন না ৫। অধিকাংশ খবীস জিনরা নোংরা স্থানে বাস করে বা আসে যায় ৬। পেশাব-পায়খানা করার সময় পর্দা জরুরী ৭। দেহ বা কাপড়ে পেশাবের ছিটা লাগা থেকে সতর্ক হওয়া জরুরী ৮। পেশাব-পায়খানার কাজে বাম হাত ব্যবহার করুন ৯। যেমন পানি দ্বারা পবিত্রতা অর্জন করা যায় ১০। ঢেলা ব্যবহারকালে (একটি বা দুটিতে পরিষ্কার হয়ে গেলেও) কমসে কম তিনটি ঢেলা ব্যবহার করতে হবে ১১। পেশাব-পায়খানা করা অবস্থায় দুই জনের লজ্জাস্থান খুলে রেখে কথা বলা উচিত নয় ১২। পেশাব-পায়খানা ঘরে প্রবেশ করার সয়ম বাম পা আগে বাড়ানো এবং সেখান হতে বের হওয়ার সময় ডান পা আগে বের করা বিধেয় হওয়ার কোন দলীল নেই ১৩। পেশাব-পায়খানারসময় বাম পায়ের উপর ভর ১৪। জুতা পরে, মাথা ঢেকে পায়খানা ঘরে প্রবেশ ১৫। পেশাব-পায়খানা করা কালে হাঁচি হলে অথবা আযান শুনলে ১৬। পেশাব-পায়খানার স্থান থেকে বের হয়ে নিম্নের দু‘আ পড়তে হয়। বেশভূষার আদব অনুচ্ছেদ ১৪ টি বেশভূষার আদব বিষয়ে কিছু কথা শরীয়তে মহিলাদের লেবাসের শর্তাবলী নিম্নরূপঃ[1] - ১। লেবাস যেন দেহের সর্বাঙ্গকে ঢেকে রাখে। ২। যে লেবাস মহিলা পরিধান করবে সেটাই যেন (বেগানা পুরুষের সামনে) সৌন্দর্যময় ও দৃষ্টি-আকর্ষনীয় না হয় ৩। লেবাস যেন এমন পাতলা না হয়, যাতে কাপড়ের উপর থেকেও ভিতরের চামড়া নজরে আসে। ৪। পোশাক যেন এমন আঁট-সাঁট (টাইট্ফিট) না হয় ৫। যেন সুগন্ধিত না হয় ৬। লেবাস যেন কোন কাফের মহিলার অনুকৃত না হয় ৭। নারীদের লেবাস যেন পুরুষদের লেবাসের অনুরূপ না হয় ৮। লেবাস যেন জাঁকজমকপূর্ণ প্রসিদ্ধিজনক না হয় পুরুষদের লেবাসের শর্তাবলী নিম্নরূপ ৭। গাঢ় হলুদ বা জাফরানী রঙের যেন না হয় ৮। লেবাস যেন রেশমী কাপড়ের না হয় ৯। পরিহিত লেবাস (পায়জামা, প্যান্ট্, লুঙ্গি, কামীস প্রভৃতি) যেন পায়ের গোড়ালীর নিচে না যায় পোশাকে ব্যবহৃত শরীয়ত বিরোধী শব্দের ব্যবহরের নমুনা দেহাঙ্গের সৌন্দর্য ও পরিচ্ছন্নতা অনুচ্ছেদ ১ টি দেহাঙ্গের সৌন্দর্য ও পরিচ্ছন্নতা- পুরুষের সাজ-সজ্জা অনুচ্ছেদ ১৬ টি পুরুষের সাজ-সজ্জা বিষয়ে মাথা ও চুল মাথানেড়া চুলপাকা কলপ মাথার লেবাস কান কপাল ভ্রূ চোখ সুর্মা ব্যবহার গাল, গালের লেবাস দাড়ি দাড়ি ছাঁটা নাক মোচ বা গোঁফ দাঁত দাঁত (ও অন্যান্য) পরিষ্কার করার আদব অনুচ্ছেদ ১২ টি দাঁত জিভ গলা বুক বগল হাত আঙ্গুল পা হাত-পায়ের নখ লজ্জাস্থান গুপ্তাঙ্গের লোম খতনা পুরুষের সুগন্ধি ও আতর অনুচ্ছেদ ১ টি সুগন্ধি ও আতর মহিলার সাজ-সজ্জা অনুচ্ছেদ ২০ টি সাজ-সজ্জা মহিলার মাথা মাথার পোশাক ও অলঙ্কার কান ও তার অলঙ্কার চেহারা কপাল ভ্রূ ও তার সৌন্দর্য চোখ ও তার প্রসাধন গাল ও তার প্রসাধন নাক, নাকের পরিচ্ছন্নতা ও অলঙ্কার ওষ্ঠাধর দাঁত, দাঁতের যত্ন ঘাড় ও গলা বক্ষঃস্থল হাত ও তার অলঙ্কার আঙ্গুল ও তার সৌন্দর্য পা ও তার অলঙ্কার জুতার আদব হাত-পায়ের নখ লজ্জাস্থান মহিলার সুগন্ধি ও আতর অনুচ্ছেদ ১ টি সুগন্ধি ও আতর আধুনিক জীবনের কিছু আদব অনুচ্ছেদ ৫ টি টেলিফোন মোবাইল রেডিও-টিভি, ভিডিও কম্পিউটার, ইন্টারনেট গাড়ি মসজিদে যাওয়ার আদব অনুচ্ছেদ ১ টি মসজিদে যাওয়ার আদবসমূহ কুরআনের প্রতি আদব অনুচ্ছেদ ৩৩ টি কুরআন কুরআন শিখা ও পড়ার সময় নিয়্যাত বিশুদ্ধ করুন কুরআন শিক্ষা করে তার উপর আমল করুন কুরআন হিফয করুন এবং হিফয করার পর তা যেন ভুলে না যান কুরআন ভুলে গেলে ‘ভুলে গেছি’ বলবেন না হৃদয় ব্যস্ত না থাকলে কুরআন তিলাওয়াত করুন আল্লাহর কালাম বুঝে পড়ুন দাঁড়িয়ে থাকা ও চলা অবস্থায়, শুয়ে থাকা বা সওয়ারীতে সওয়ার অবস্থায় কুরআন পাঠ বৈধ পবিত্র ও ওযূ অবস্থায় কুরআন স্পর্শ করুন পবিত্র অবস্থায় কুরআন তিলাওয়াত করুন ঋতুমতী মহিলা মাসিক ও প্রসবোত্তর খুন জারি থাকাকালে (প্রয়োজনে) কুরআন মুখস্থ পড়তে পারে আল্লাহর বাণী তিলাওয়াতের পূর্বে দাঁত মেজে মুখ ধুয়ে নেওয়া উত্তম কুরআন তিলাওয়াত শুরু করার পূর্বে শয়তান থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করুন এবং আল্লাহর নাম নিয়ে শুরু করুন সূরার প্রথম অংশ থেকে তিলাওয়াত শুরু করুন কুরআন পড়ুন ধীরে ধীরে, স্পষ্ট ও সুন্দরভাবে কুরআনে যেখানে যেমন টান আছে, ঠিক তেমন টান দিয়ে পড়ুন খুব মিষ্টি ও মধুর সুরে বিনয়-নম্রতার সাথে কুরআন পাঠ করুন কুরআন তিলাওয়াতের সময় কান্না যে খুব সুন্দর কুরআন পড়তে পারে, তার নিকট থেকে কুরআন শুনতে চাওয়া মুস্তাহাব একাকী থাকলে বা লোক দেখানির ভয় না থাকলে কুরআন সশব্দে পড়ুন কুরআন পড়তে পড়তে তন্দ্রা বা ঢুল এলে পড়া বন্ধ করুন কুরআন পড়তে পড়তে তসবীহর কথা এলে তসবীহ পড়া এবং আযাবের কথা এলে আযাব থেকে পানাহ ও রহমতের কথা এলে রহমত চেয়ে প্রার্থনা করা সুন্নাত সিজদার আয়াত পাঠ করলে সিজদা করা সুন্নাত মাঝে মাঝে কুরআন খতম করার চেষ্টা করুন (নামাযের বাইরে সাধারণ সময়ে) কুরআন খতমের পর দু‘আ করতে পারেন কুরআন তিলাওয়াতের আগে অথবা পরে কুরআন তুলে চুম্বন করা, চোখে বুলানো অথবা কপালে লাগিয়ে সিজদা করা বৈধ নয় কুরআন মাজীদের আয়াতকে নকশা বানিয়ে দেওয়ালে টাঙ্গানো বিধেয় নয় কুরআন অবতীর্ণ হয়েছে জীবিত ব্যক্তির জন্য, মৃতব্যক্তি কুরআন দ্বারা কোন প্রকার উপকৃত হতে পারে না কুরআনের আয়াত দ্বারা তাবীয লিখা বৈধ নয়। বৈধ নয় কুরআনের আয়াতকে কোন প্রকার অসম্মান ও অপবিত্রতার স্থানে পতিত করা কুরআন জীর্ণ-শীর্ণ বা নষ্ট হয়ে গেলে, কুরআন থেকে পাতা বিচ্ছিন্ন হলে তা পানিতে ফেলবেন না কুরআন তিলাওয়াত শোনার সময় অন্য কাজ বা কথায় ব্যস্ত না থেকে চুপ থেকে মনোযোগ সহকারে শুনুন কুরআন বা তার অর্থ নিয়ে কারো সাথে মতভেদ দেখা দিলে খবরদার তার সাথে তর্ক বা ঝগড়া করবেন না কতিপয় ক্বিরাআতের বিদআত চলন ও আরোহণের আদব অনুচ্ছেদ ৪ টি যমীনে চলাফেরা করার সময় অহংকার প্রদর্শন না করা এমনভাবে পথ চলুন, যাতে শীঘ্রতা থাকবে; কিন্তু আপনার গাম্ভির্যও নষ্ট হবে না কখনো কখনো খালি পায়ে চলা উত্তম গাড়ি চড়ে কোথাও যাওয়ার সময় গাড়ি চড়ার দু‘আ পড়ুন সফরের আদব অনুচ্ছেদ ২৬ টি দূরের সফরে একা যাওয়া উচিত নয় সফরে হলেও শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে মুসলিমকে মহিলা হলে দূর সফরে একাকিনী যেতে পারে না মহিলা একাকিনী হলে অবিবাহিতার সফর পর্দার সাথে বের হবে পারলে বৃহস্পতিবার এবং সকাল সকাল সফরে বের হন নিরুপায় না হলে জুমআর দিন জুমআর আযান হওয়ার পর সফর করা উচিত নয় বাড়িতে পরিজনের থাকা-খাওয়ার সুব্যবস্থা করুন মুসাফির সফরে বের হলে তাকে বিদায় দিন চড়ার শুরুতে ‘বিসমিল্লাহ’ বলুন সফরে বের হওয়ার দু‘আ বলুন বাড়ি থেকে বের হওয়ার পূর্বে ২ রাকআত নামায পড়া মুস্তাহাব পথিমধ্যে যানবাহন দুর্ঘটনাগ্রস্ত হলে শয়তানকে গালি দেবেন না পথ চলতে চলতে আল্লাহর জিকির করুন সফরে যানবাহনের উপরেও নফল নামায পড়তে পারেন সফরে রাত্রিকালে কোন ফাঁকা জায়গায় ঘুমিয়ে বিশ্রাম নিতে হলে রাস্তার উপর শোবেন না সফরে কোন অচেনা স্থানে বিশ্রামের সময় নিম্নের দু‘আ পড়ুন কোন গ্রাম বা শহর প্রবেশকালে সেখানকার লোকদের অনিষ্টকারিতা থেকে আশ্রয় প্রার্থনা বাজারে প্রবেশের দু'আ সফরকারীর ভোরের জিকির পাঠ করুন সফরের কাজ শেষ হলে অতি সত্বর বাড়ি ফিরে আসুন বাড়ি ফিরার আগে পরিবারে খবর জানানো সফর থেকে বাড়ি ফিরে এলে দু'আ জিহাদ বা হজ্জ থেকে ফিরে এলে দু'আ ঘরে প্রবেশ করতে ‘বিসমিল্লাহ’ বলুন রাস্তার আদব অনুচ্ছেদ ৯ টি রাস্তার হক - দৃষ্টি সংযত রাখা রাস্তার হক- কষ্ট দেওয়া থেকে বিরত থাকা রাস্তার হক - সালামের জওয়াব দেওয়া রাস্তার হক - সৎকাজের আদেশ এবং মন্দ কাজে বাধা দান করা রাস্তার হক - পথিককে পথ বলে দেওয়া পথিকের পথ চলতে বাধাসৃষ্টিকারী অথবা কষ্টদানকারী কোন জিনিস পথে ফেলবেন না পথের মধ্যে অপর পথিকের সহযোগিতা করুন পথে পেশাব-পায়খানা করবেন না নারীদের রাস্তায় চলা অপরের গৃহ-প্রবেশে অনুমতির আদব অনুচ্ছেদ ১ টি অপরের গৃহ প্রবেশে অনুমতির আদব সালামের আদব অনুচ্ছেদ ২৮ টি সালাম বিষয়ক কিছু কথা সালাম দেওয়া সুন্নাত; কিন্তু সালামের উত্তর দেওয়া ওয়াজেব সালাম ও তার জবাবের বাক্যাবলী সালাম ও তার উত্তর উচ্চস্বরে বলা সালাম দেওয়ার পর সন্দেহ হলে পরিচিত হোক অথবা না হোক প্রত্যেক মুসলিমকে সালাম দেওয়া সুন্নাত অতিথি ও আগন্তুক ব্যক্তিরই সালাম দেওয়া সুন্নাত বিভিন্ন অবস্থার সালাম একজনকে সালাম দেওয়ার পর গাছ বা দেওয়ালের আড়াল হলে মহিলাদের সালাম দেয়া শিশুদের সালাম দেয়া যেখানে কিছু লোক ঘুমিয়ে এবং কিছু লোক জেগে আছে সালাম হল একটি ইসলামী প্রতীক অমুসলিমদের সালামের জবাব কোন মজলিসে মুসলিম-অমুসলিম এক সাথে বসে থাকলে কেবলমাত্র ইশারা ও ইঙ্গিতে সালাম বা তার উত্তর নামাযরত মুসল্লীকেও সালাম দেওয়া কুরআন পাঠরত ব্যক্তিকে সালাম দেওয়া পেশাব-পায়খানা করছে এমন লোককে সালাম দেওয়া স্বগৃহে প্রবেশকালেও সালাম দেওয়া কেউ পরোক্ষভাবে অন্যের মাধ্যমে সালাম পাঠালে মসজিদে সালাম জুমআর খুতবা চলাকালে সালাম ও তার উত্তর দেওয়া কোন প্রকার কথা বলার পূর্বে সালাম দেওয়া বিধেয় পাপীদের সালাম দেয়া মুসলিম ভাইয়ের সাথে ৩ দিনের বেশী সালাম বন্ধ রাখা বৈধ নয় সাক্ষাৎ ও বিদায়ের সময় সালাম সালাম দেওয়ার সময় কোন প্রকার ঝুঁকা বৈধ নয় অপরের সাথে সাক্ষাতের আদব অনুচ্ছেদ ১১ টি সালাম দেওয়ার পর তার সাথে মুসাফাহাহ করুন মুসাফাহাহ হল সাক্ষাৎ ও বিদায়ের সময় বিধেয় শিশুর সাথেও মুসাফাহাহ করুন কিশোরী বা মহিলার সাথে মুসাফাহাহ মুসাফাহাহ করার সময় সাথীর হাত ছাড়িয়ে না নেওয়া মুসাফাহ মুসাফাহাহ এক হাতে এবং কেবল ডান হাতে আগন্তুকের জন্য উঠে দাঁড়ানো সফর থেকে ফিরে সাক্ষাতের সময় পরস্পরকে মুআনাকা করা বিধেয় মুআনাকা সাক্ষাতের সময় পরস্পরকে (গালে) চুম্বন দেওয়া কাউকে দেখা করতে যাওয়ার আদব অনুচ্ছেদ ৪ টি সাক্ষাৎ বিষয়ক সাক্ষাতের যে নিষিদ্ধ সময় রয়েছে, সেই সময় ছাড়া অন্য সময়ে সাক্ষাতের উদ্দেশ্যে বের হন সাক্ষাতে গেলে ইমামতি না করা সাক্ষাতে মধ্যমপন্থা অবলম্বন করা রোগীকে সাক্ষাৎ করার আদব অনুচ্ছেদ ১৩ টি রোগীর সাক্ষাৎ বিষয়ক রোগী শিশু হলে নারী-পুরুষ পরস্পরকে রোগে সান্ত্বনা দিতে পারে রোগী বেহুশ ও অজ্ঞান অবস্থায় থাকলে রোগী অমুসলিম হলেও তাকে দেখতে যান সঠিক সময়ে রোগী দেখতে যাওয়া রোগীকে বিরক্ত না করা রোগী দেখতে গিয়ে তার মাথার নিকট বসা সুন্নাত রোগী দেখতে গিয়ে কি বলবেন? রোগীর নিকট রোগীর জন্য বিশেষ দু‘আ করুন কাউকে কুশলবাদ জিজ্ঞাসা করলে রোগীকে কোন খাবার খেতে বাধ্য না করা রোগীর মৃত্যু উপস্থিত হলে মেহমান নেওয়াযীর আদব অনুচ্ছেদ ১৩ টি দাওয়াত কবুল করা ওয়াজেব মৌখিক বা সরাসরি দাওয়াত না হলেও দূত, এলচি, চিঠি, কার্ড বা টেলিফোনের মাধ্যমে দাওয়াত গ্রহণ করা ওয়াজেব দাওয়াতের দিনে রোযা থাকলে মেহমানকে স্বাগত জানানো মেহমানের সাথে যদি কোন অনাহূত লোক অযাচিতভাবে আসে মেহমানের খাতিরে অতিরঞ্জন দাওয়াতে যা করা বৈধ নয় অহেতুক প্রশ্ন না করা মজলিসে বয়োজ্যেষ্ঠদের প্রাধান্য দেয়া মেযবানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ মেযবান যে খাবার পেশ করে, তাই সন্তুষ্টচিত্তে খাওয়া মেহমানদারীর সময়সীমা মেহমানকে বিদায়কালে বাড়ির দরজা পর্যন্ত তার সাথে সাথে যাওয়া ভ্রাতৃত্ব ও বন্ধুত্বের আদব অনুচ্ছেদ ১ টি ভ্রাতৃত্ব ও বন্ধুত্বের আদব- মজলিসের আদব অনুচ্ছেদ ১৯ টি আল্লাহর জিকির ও নবী (সাঃ) এর উপর দরূদ পড়া কার সাথে উঠা-বসা করবেন? মুনাফিক ও ইসলামের গোপন শত্রুদের সাথে না বসা এমন জায়গায় বসবেন না, যেখানে বসলে পাপ হওয়ার আশঙ্কা আছে এমন ঢঙে বসবেন না, যেমন ঢঙে বসতে আমাদের শরীয়ত আমাদেরকে নিষেধ করেছে মজলিসে সালাম দেয়া মজলিসে এসে কাউকে উঠিয়ে তার জায়গায় বসবেন না, কাউকে বসাবেন না মজলিসে বসে থাকা অবস্থায় সমস্ত জায়গা ভর্তি হয়ে গেলে মজলিসে দুই জনের মাঝখানে না বসা মজলিসে উপস্থিত হয়ে যেখানে মজলিস শেষ হয়েছে সেখানে বসা একই মজলিসে ৩ জন বসে থাকলে তাদের একজনকে বাদ দিয়ে কথা না বলা পরকীয় কথায় কানাচি পাতা হারাম মজলিসে না হাসা মজলিসে থাকাকালে ঘেউ ঘেউ করে ঢেকুর তোলা মজলিসে বসার সময় আদবের সাথে থাকুন মজলিসে কেউ কথা বললে কান দিয়ে শুনুন মজলিসে বসে থাকা অবস্থায় দু'আ মজলিস শেষ হলে কাফ্ফারাতুল মাজলিসের দু‘আ পড়ুন মজলিস থেকে উঠে চলে যাওয়ার সময় সালাম দেয়া হাই ও হাঁচির আদব অনুচ্ছেদ ২ টি হাই ও হাঁচি হাঁচির সময় কথাবার্তার আদব অনুচ্ছেদ ২ টি কথাবার্তার আদব-১ কথাবার্তার আদব-২ শয়ন ও নিদ্রার আদব অনুচ্ছেদ ১৭ টি শয়ন ও নিদ্রা শোয়ার আগে ‘বিসমিল্লাহ’ বলে বাড়ির দরজাসমূহ বন্ধ করে দিন বিছানায় যাওয়ার আগে ওযূ করে নেওয়া বিছানা ঝেড়ে পরিষ্কার করে নেওয়া ডান কাতে শয়ন আয়াতুল কুরসী পাঠ সূরা বাক্বারার শেষ দুই আয়াত পাঠ সূরা পড়ে ফুঁ দেওয়া শোয়ার আগে বিভিন্ন সূরা পড়া একাকী না শোয়া দুই জন শুলে এক বিছানায় একটি ঢাকা বা একটি লেপ-কম্বলে শুবেন না পায়ের উপর পা রেখে চিৎ হয়ে শুবেন না কিবলার দিকে পা করে শোয়া উপুড় হয়ে শুবেন না এমন ছাদে শুবেন না, যার বাঁধ অথবা দেওয়াল নেই রাত্রে খারাপ স্বপ্ন দেখে জেগে উঠলে ঘুম থেকে জাগার পর দাস-দাসীর সাথে ব্যবহার অনুচ্ছেদ ১০ টি কাজের লোক রাখুন দুটি গুণ দেখে যথাসময়ে বেতন মিটিয়ে দেওয়া পারিশ্রমিক আত্মসাৎ না করা দাস-দাসীকে বিনা দলীলে কোন অপবাদ দেবেন না খাবার ও পোশাকের ব্যাপারে সাধ্যের বাইরে কাজ না দেওয়া দাস-দাসীর ভুলকে ক্ষমা করা খাবারে খাদেমকে শরীক করা দাসীর ব্যাপারে আপনি ও আপনার বাড়ির পুরুষরা সতর্ক হন বিশেষ উপলক্ষে তাদেরকে উপঢৌকন দিন কাফেরের সাথে ব্যবহার অনুচ্ছেদ ১ টি কাফেরের সাথে বসবাস করলে যা খেয়াল রাখা উচিত পশু-পক্ষীর প্রতি ব্যবহার অনুচ্ছেদ ১ টি পশু পাখির ব্যাপারে আল্লাহভক্ত একজন আবেদের প্রাত্যহিক আমল অনুচ্ছেদ ২ টি প্রতিদিনের আমল কাবীরা গোনাহসমূহ হতে সাবধান থাকুন