আদ-দাহহাক ইবনে কায়েস (রাঃ) থেকে বর্ণিত হাদিস পাওয়া গেছে 3 টি

পরিচ্ছেদঃ ২৮. আসাবাহ সম্পর্কে

৩০২১. দাহহাক ইবনু কায়িস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, উমার আমাউসের মহামারী (প্লেগ) রোগে মৃতব্যক্তির সম্পর্কে ফায়সালা করেছিলেন যে, তারা পিতাকুলের দিক থেকে সম পর্যায়ের হলে মাতৃকুলকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। আর যখন তারা পিতার দিক থেকে একে অপরের চেয়ে অধিক নিকটতম ছিল, তখন তারাই সম্পদের অধিক হকদার হয়েছিল।[1]

باب الْعَصَبَةِ

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ أَخْبَرَنَا هِشَامٌ عَنْ مُحَمَّدٍ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ عُتْبَةَ قَالَ حَدَّثَنِي الضَّحَّاكُ بْنُ قَيْسٍ أَنَّ عُمَرَ قَضَى فِي أَهْلِ طَاعُونِ عَمَوَاسَ أَنَّهُمْ كَانُوا إِذَا كَانُوا مِنْ قِبَلِ الْأَبِ سَوَاءً فَبَنُو الْأُمِّ أَحَقُّ وَإِذَا كَانَ بَعْضُهُمْ أَقْرَبَ مِنْ بَعْضٍ بِأَبٍ فَهُمْ أَحَقُّ بِالْمَالِ


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আদ-দাহহাক ইবনে কায়েস (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ২৪২. জুমু‘আহর সলাতে কোন সূরাহ পাঠ করবে?

১১২৩। দাহহাক ইবনু ক্বায়িস (রহঃ) নু‘মান ইবনু বাশীর (রাঃ) কে জিজ্ঞেস করলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জুমু‘আহর দিন সূরাহ ‘জুমু‘আহ’ তিলাওয়াতের পর কোন সূরাহ পাঠ করতেন? তিনি বলেন, তিনি সূরাহ ‘হাল আতা-কা হাদীসুল গা-শিয়াহ’’ তিলাওয়াত করতেন।[1]

সহীহ : মুসলিম।

باب مَا يُقْرَأُ بِهِ فِي الْجُمُعَةِ

حَدَّثَنَا الْقَعْنَبِيُّ، عَنْ مَالِكٍ، عَنْ ضَمْرَةَ بْنِ سَعِيدٍ الْمَازِنِيِّ، عَنْ عُبَيْدِ اللهِ بْنِ عَبْدِ اللهِ بْنِ عُتْبَةَ، أَنَّ الضَّحَّاكَ بْنَ قَيْسٍ، سَأَلَ النُّعْمَانَ بْنَ بَشِيرٍ مَاذَا كَانَ يَقْرَأُ بِهِ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم يَوْمَ الْجُمُعَةِ عَلَى إِثْرِ سُورَةِ الْجُمُعَةِ فَقَالَ كَانَ يَقْرَأُ ‏(‏هَلْ أَتَاكَ حَدِيثُ الْغَاشِيَةِ)‏ ‏.‏

- صحيح : م


Al-Dahhak b. Qais asked al-Nu'man b. Bashir: What did the Messenger of Allah (ﷺ) recited on Friday after reciting the Surah al-Jumu'ah (62). He replied: He used to recite, "Had the story of overwhelming event reached you ?" (88).


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আদ-দাহহাক ইবনে কায়েস (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ১৪. নিয়ত বা অভিপ্রায়

১২৯(৩). ইয়াহইয়া ইবনে মুহাম্মাদ ইবনে সায়েদ (রহঃ) ... আদ-দাহহাক ইবনে কায়েস আল-ফিহরী (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, মহামহিম আল্লাহ বলেন, আমি উত্তম শরীক। যে ব্যক্তি আমার সাথে অন্য কাউকে শরীক করলো, সে আমার শরীক হলো। হে মানুষ! তোমরা একনিষ্ঠভাবে মহামহিম আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের অভিপ্রায়ে কাজ করো। কেননা যে কাজ একনিষ্ঠভাবে আল্লাহর জন্য করা হয় কেবল সেটাই তিনি গ্রহণ করেন এবং তোমরা এরূপ বলো না, এটা আল্লাহর জন্য এবং এটা রেহেমের জন্য। কেননা এরূপ বললে রেহেমের জন্য হবে, আল্লাহর জন্য তার কিছুই হবে না। আর তোমরা এরূপ বলো না, এটা আল্লাহর জন্য এবং তোমাদের সন্তুষ্টির জন্য। কেননা এরূপ বললে তা তোমাদের সন্তুষ্টির জন্য হবে, আল্লাহর জন্য তার কিছুই হবে না।

بَابُ النِّيَّةِ

نَا يَحْيَى بْنُ مُحَمَّدِ بْنِ صَاعِدٍ ، وَجَعْفَرُ بْنُ مُحَمَّدِ بْنِ يَعْقُوبَ الصَّنْدَلِيُّ ، قَالَا : نَا إِبْرَاهِيمُ بْنُ مُجَشِّرٍ ، نَا عُبَيْدَةُ بْنُ حُمَيْدٍ ، حَدَّثَنِي عَبْدُ الْعَزِيزِ بْنُ رُفَيْعٍ وَغَيْرُهُ ، عَنْ تَمِيمِ بْنِ طَرَفَةَ ، عَنِ الضَّحَّاكِ بْنِ قَيْسٍ الْفِهْرِيِّ ، قَالَ : قَالَ رَسُولُ اللَّهِ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - : " إِنَّ اللَّهَ عَزَّ وَجَلَّ يَقُولُ أَنَا خَيْرُ شَرِيكٍ ، فَمَنْ أَشْرَكَ مَعِي شَرِيكًا فَهُوَ لِشَرِيكِي . يَا أَيُّهَا النَّاسُ أَخْلِصُوا أَعْمَالَكُمْ لِلَّهِ عَزَّ وَجَلَّ ؛ فَإِنَّ اللَّهَ لَا يَقْبَلُ إِلَّا مَا أُخْلِصَ لَهُ ، وَلَا تَقُولُوا هَذَا لِلَّهِ وَلِلرَّحِمِ ؛ فَإِنَّهَا لِلرَّحِمِ وَلَيْسَ لِلَّهِ مِنْهَا شَيْءٌ ، وَلَا تَقُولُوا هَذَا لِلَّهِ وَلِوُجُوهِكُمْ ؛ فَإِنَّهَا لِوُجُوهِكُمْ وَلَيْسَ لِلَّهِ مِنْهَا شَيْءٌ


হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ
বর্ণনাকারীঃ আদ-দাহহাক ইবনে কায়েস (রাঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
দেখানো হচ্ছেঃ 1 to 3 of 3