আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ) থেকে বর্ণিত হাদিস পাওয়া গেছে টি

পরিচ্ছেদঃ ৭৫. যখন মুকতাদীর সংখ্যা তিনজন হবে তখন তারা কিরূপে দাঁড়াবে?

৬১৩. উছমান ইবনু আবূ শায়বা ..... আব্দুর রহমান ইবনুল-আসওয়াদ (রাঃ) থেকে তাঁর পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, আলকামা ও আসওয়াদ (রহঃ) আবদুল্লাহ্ ইবনু মাসউদ (রাঃ) এর খেদমতে উপস্থিতির জন্য দরখাস্ত করেন। তাঁর খেদমতে প্রবেশর জন্য আমরা অনেকক্ষণ ধরে অপেক্ষা করছিলাম। এমতাবস্থায় জনৈক দাসী ঘর হতে বের হয়ে তাদেরকে দেখে (পুনরায় ঘরে প্রবেশ করত) তাদের জন্য অনুমতি চায়। তিনি উভয়কে তেতরে প্রবেশের অনুমতি দেন। অতঃপর তিনি (ইবনু মাসউদ) আমার ও আলকামার মাঝখানে দাঁড়িয়ে নামায আদায় করেন। অতঃপর তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে এরূপ করতে দেখেছি। (নাসাঈ)।

باب إِذَا كَانُوا ثَلاَثَةً كَيْفَ يَقُومُونَ

حَدَّثَنَا عُثْمَانُ بْنُ أَبِي شَيْبَةَ، حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ فُضَيْلٍ، عَنْ هَارُونَ بْنِ عَنْتَرَةَ، عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ الأَسْوَدِ، عَنْ أَبِيهِ، قَالَ اسْتَأْذَنَ عَلْقَمَةُ وَالأَسْوَدُ عَلَى عَبْدِ اللَّهِ وَقَدْ كُنَّا أَطَلْنَا الْقُعُودَ عَلَى بَابِهِ فَخَرَجَتِ الْجَارِيَةُ فَاسْتَأْذَنَتْ لَهُمَا فَأَذِنَ لَهُمَا ثُمَّ قَامَ فَصَلَّى بَيْنِي وَبَيْنَهُ ثُمَّ قَالَ هَكَذَا رَأَيْتُ رَسُولَ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم فَعَلَ ‏.‏


Narrated Abdullah ibn Mas'ud: Alqamah and al-Aswad sought permission from Abdullah (ibn Mas'ud) for admission, and we remained sitting at his door for a long time. A slave-girl came out and gave them permission (to enter). He (Ibn Mas'ud) then got up and prayed (standing) between me (al-Aswad) and him (Alqamah). He then said: I witnessed the Messenger of Allah (ﷺ) doing similarly.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৩. বর্গাচাষ সম্পর্কে বর্ণিত ভাষাগত বিভিন্নতা

৩৯৩৪. আলী ইবন হুজুর (রহঃ) ... আবদুর রহমান ইবন আসওয়াদ (রহঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমার দুই চাচা উৎপন্ন দ্রব্যের এক-তৃতীয়াংশ ও এক-চতুর্থাংশের বিনিময়ে চাষ করতেন। আমি তাদের উভয়ের সাথে শরীক ছিলাম, আর আকামা এবং আসওয়াদ (রহঃ)-ও একথা জানতেন, তবুও তারা কিছু বলতেন না।

ذِكْرُ اخْتِلَافِ الْأَلْفَاظِ الْمَأْثُورَةِ فِي الْمُزَارَعَةِ

أَخْبَرَنَا عَلِيُّ بْنُ حُجْرٍ قَالَ أَنْبَأَنَا شَرِيكٌ عَنْ أَبِي إِسْحَقَ عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ الْأَسْوَدِ قَالَ كَانَ عَمَّايَ يَزْرَعَانِ بِالثُّلُثِ وَالرُّبُعِ وَأَبِي شَرِيكَهُمَا وَعَلْقَمَةُ وَالْأَسْوَدُ يَعْلَمَانِ فَلَا يُغَيِّرَانِ


It was narrated that 'Abdur-Rahman bin Al-Aswad said: "Two of my paternal uncles used to cultivate (land) in return for one-third or one-quarter of the crop, and my father was their partner. 'Alqamah and Al-Aswad knew about that and did not change anything."


হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai'f)
বর্ণনাকারীঃ আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭৩. ‘জুনুবী’ (বীর্যপাতের কারণে অপবিত্র ব্যক্তি) যদি ঘুমাতে চায়

৭৮০. আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ তার পিতা হতে বর্ণনা করেন, তিনি বলেন, আমি আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহাকে জিজ্ঞাসা করলাম: রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ‘জুনুবী’ (অপবিত্র) অবস্থায় ঘুমাতে চাইলে কী করতেন? তিনি বললেন: তিনি সালাতের ওযুর ন্যায় ওযু করতেন এরপর ঘুমাতেন।[1]

بَابُ الْجُنُبِ إِذَا أَرَادَ أَنْ يَنَامَ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ خَالِدٍ حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ إِسْحَقَ عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ الْأَسْوَدِ عَنْ أَبِيهِ قَالَ سَأَلْتُ عَائِشَةَ كَيْفَ كَانَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَصْنَعُ إِذَا أَرَادَ أَنْ يَنَامَ وَهُوَ جُنُبٌ فَقَالَتْ كَانَ يَتَوَضَّأُ وُضُوءَهُ لِلصَّلَاةِ ثُمَّ يَنَامُ

محمد بن إسحاق مدلس وقد عنعن ولكن الحديث صحيح


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ১৩. সূরা বাক্বারার ফযীলত

৩৪১৭. আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, যে ব্যক্তি সূরা বাকারা পাঠ করে, তাকে জান্নাতে তার একটি তাজ বা মুকুট পরানো হবে।[1]

باب فِي فَضْلِ سُورَةِ الْبَقَرَةِ

حَدَّثَنَا إِسْمَعِيلُ بْنُ أَبَانَ عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ طَلْحَةَ عَنْ زُبَيْدٍ عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ الْأَسْوَدِ قَالَ مَنْ قَرَأَ سُورَةَ الْبَقَرَةِ تُوِّجَ بِهَا تَاجًا فِي الْجَنَّةِ


হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)
বর্ণনাকারীঃ আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৩৮: দু’টি ঢিলা দ্বারা পবিত্রতা অর্জন করার অনুমতি

৪২. আহমাদ ইবনু সুলায়মান (রহ.) .... আসওয়াদ (রহ.) থেকে বর্ণিত। তিনি ‘আবদুল্লাহ ইবনু মাস্'উদ (রাঃ)-কে বলতে শুনেছেন যে, নবী (সা.) একদিন পায়খানা-প্রস্রাবের জন্যে নীচু জমিতে আসেন। তিনি (সা.) আমাকে তিনটি পাথর (ঢিলা) আনার জন্যে বলেন। আমি দু'টি পাথর পেলাম। তৃতীয়টি খোঁজ করে পেলাম না। কাজেই আমি একটি গোবরের টুকরা নিয়ে নবী (সা.) -এর কাছে আসালাম। তিনি (সা.) পাথর দু'টি নিলেন ও গোবরটি ফেলে দিলেন এবং বললেন, এটা رِكْسٌ (রিকস)। আবূ আবদুর রহমান, (ইমাম নাসায়ী) বলেন, 'রিকস' অর্থ হলো জিনের খাবার।

الرُّخْصَةُ فِي الِاسْتِطَابَةِ بِحَجَرَيْنِ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ سُلَيْمَانَ، ‏‏‏‏‏‏قال:‏‏‏‏ حَدَّثَنَا أَبُو نُعَيْمٍ، ‏‏‏‏‏‏عَنْ زُهَيْرٍ، ‏‏‏‏‏‏عَنْ أَبِي إِسْحَاقَ، ‏‏‏‏‏‏قال:‏‏‏‏ لَيْسَ أَبُو عُبَيْدَةَ ذَكَرَهُ وَلَكِنْعَبْدُ الرَّحْمَنِ بْنُ الْأَسْوَدِ، ‏‏‏‏‏‏عَنْ أَبِيهِ، ‏‏‏‏‏‏أَنَّهُ سَمِعَ عَبْدَ اللَّهِ، ‏‏‏‏‏‏يَقُولُ:‏‏‏‏ أَتَى النَّبِيُّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ الْغَائِطَ وَأَمَرَنِي أَنْ آتِيَهُ بِثَلَاثَةِ أَحْجَارٍ، ‏‏‏‏‏‏فَوَجَدْتُ حَجَرَيْنِ وَالْتَمَسْتُ الثَّالِثَ فَلَمْ أَجِدْهُ، ‏‏‏‏‏‏فَأَخَذْتُ رَوْثَةً فَأَتَيْتُ بِهِنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، ‏‏‏‏‏‏فَأَخَذَ الْحَجَرَيْنِ وَأَلْقَى الرَّوْثَةَ، ‏‏‏‏‏‏وَقَالَ:‏‏‏‏ هَذِهِ رِكْسٌ . قَالَ أَبُو عَبْد الرَّحْمَنِ:‏‏‏‏ الرِّكْسُ طَعَامُ الْجِنِّ.

تخریج دارالدعوہ: صحیح البخاری/الوضوء ۲۱ (۱۵۶)، وقد أخرجہ: سنن الترمذی/الطہارة ۱۳ (۱۷)، سنن ابن ماجہ/فیہ ۱۶ (۳۱۴)، (تحفة الأشراف: ۹۱۷۰)، مسند احمد ۱/۳۸۸، ۴۱۸، ۴۲۷، ۴۵۰ (صحیح)

صحيح وضعيف سنن النسائي الألباني: حديث نمبر 42 - صحيح

38. Allowing The Usage Of Two Stones For Cleaning


Abdur-Rahman bin Al-Aswad (narrated) from his father that he heard 'Abdullah say: The Prophet (ﷺ) wanted to defecate, and he told me to bring him three stones. I found two stones and looked for a third, but I could not find any, so I picked up a piece of dung and brought them to the Prophet (ﷺ). He took the two stones and three away the dung and said: This is Riks. Abu 'Abdur-Rahman (An-Nasai') said: Riks is the food of the jinn.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ আব্দুর রহমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
দেখানো হচ্ছেঃ থেকে ৫ পর্যন্ত, সর্বমোট ৫ টি রেকর্ডের মধ্য থেকে