জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ) থেকে বর্ণিত হাদিস পাওয়া গেছে 12 টি

পরিচ্ছেদঃ ৬২. ঘরে একাকী নামায আদায়ের পর মসজিদে গিয়ে জামাআত পেলে তাতে শরীক হবে।

৫৭৫. হাফস ইবনু উমার ..... জাবের ইবনু ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ থেকে তার পিতার সূত্রে বর্ণিত। একদা যৌবনের প্রারম্ভে তিনি রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাথে জামাআতে নামায আদায় করেন। নামায শেষে দেখা যায় যে, দুই ব্যক্তি জামাআতে শরীক না হয়ে মসজিদের কোনায় বসে আছ। তখন তাদেরকে ডাকা হলে তারা নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর খিদমতে ভীত প্রকম্পিত অবস্থায় হাযির হয়। অতঃপর তিনি তাদের জিজ্ঞেস করেনঃ আমাদের সাথে নামায আদায় করতে কিসে তোমাদের বাধা দিয়েছে? তারা বলে, আমরা আমাদের ঘরে নামায আদায় করেছি। তিনি বলেনঃ তোমরা এইরূপ করবে না, বরং কেউ ঘরে নামায আদায়ের পর মসজিদে ইমামকে নামাযরত পেলে তার সাথে শরীক হয়ে নামায আদায় করবে এবং তা তার জন্য নফল হিসেবে গণ্য হবে। (তিরমিযী)।

باب فِيمَنْ صَلَّى فِي مَنْزِلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ يُصَلِّي مَعَهُمْ

حَدَّثَنَا حَفْصُ بْنُ عُمَرَ، حَدَّثَنَا شُعْبَةُ، أَخْبَرَنِي يَعْلَى بْنُ عَطَاءٍ، عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ بْنِ الأَسْوَدِ، عَنْ أَبِيهِأَنَّهُ صَلَّى مَعَ رَسُولِ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم وَهُوَ غُلاَمٌ شَابٌّ فَلَمَّا صَلَّى إِذَا رَجُلاَنِ لَمْ يُصَلِّيَا فِي نَاحِيَةِ الْمَسْجِدِ فَدَعَا بِهِمَا فَجِيءَ بِهِمَا تُرْعَدُ فَرَائِصُهُمَا فَقَالَ ‏"‏ مَا مَنَعَكُمَا أَنْ تُصَلِّيَا مَعَنَا ‏"‏ ‏.‏ قَالاَ قَدْ صَلَّيْنَا فِي رِحَالِنَا ‏.‏ فَقَالَ ‏"‏ لاَ تَفْعَلُوا إِذَا صَلَّى أَحَدُكُمْ فِي رَحْلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الإِمَامَ وَلَمْ يُصَلِّ فَلْيُصَلِّ مَعَهُ فَإِنَّهَا لَهُ نَافِلَةٌ ‏"‏ ‏.‏


Narrated Yazid ibn al-Aswad: Yazid prayed along with the Messenger of Allah (ﷺ) when he was a young boy. When he (the Prophet) had prayed there were two persons (sitting) in the corner of the mosque; they did not pray (along with the Prophet). He called for them. They were brought trembling (before him). He asked: What prevented you from praying along with us? They replied: We have already prayed in our houses. He said: Do not do so. If any of you prays in his house and finds that the imam has not prayed, he should pray along with him; and that will be a supererogatory prayer for him.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৬২. ঘরে একাকী নামায আদায়ের পর মসজিদে গিয়ে জামাআত পেলে তাতে শরীক হবে।

৫৭৬. ইবনু মুআয .... জাবের ইবনু ইয়াযীদ (রহঃ) থেকে তাঁর পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি মিনাতে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাথে ফজরের নামায আদায় করি ... হাদীছের অবশিষ্টাংশ পূর্বোক্ত হাদীছের অনুরূপ।

باب فِيمَنْ صَلَّى فِي مَنْزِلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ يُصَلِّي مَعَهُمْ

حَدَّثَنَا ابْنُ مُعَاذٍ، حَدَّثَنَا أَبِي، حَدَّثَنَا شُعْبَةُ، عَنْ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ، عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ، عَنْ أَبِيهِ، قَالَ صَلَّيْتُ مَعَ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم الصُّبْحَ بِمِنًى بِمَعْنَاهُ ‏.‏


Jabir b. Yazid reported on the authority of his father: I said the morning prayer along with the prophet (ﷺ) at Mina. He narrated the rest of the tradition to the same effect.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭৬. সালাম ফিরানর পর ইমামের (মুক্তাদিদের দিকে) ঘুরে বসা।

৬১৪. মুসাদ্দাদ ..... জাবের ইবনু ইয়াযীদ থেকে তাঁর পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পিছনে নামায আদায় করতাম। তিনি নামায শেষে মুসল্লীদের দিক ফিরে বসতেন। (নাসাঈ, তিরমিযী)।

باب الإِمَامِ يَنْحَرِفُ بَعْدَ التَّسْلِيمِ

حَدَّثَنَا مُسَدَّدٌ، حَدَّثَنَا يَحْيَى، عَنْ سُفْيَانَ، حَدَّثَنِي يَعْلَى بْنُ عَطَاءٍ، عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ بْنِ الأَسْوَدِ، عَنْ أَبِيهِ، قَالَ صَلَّيْتُ خَلْفَ رَسُولِ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم فَكَانَ إِذَا انْصَرَفَ انْحَرَفَ ‏.‏


Narrated Yazid ibn al-Aswad: Jabir ibn Yazid ibn al-Aswad reported on the authority of his father: I prayed behind the Messenger of Allah (ﷺ). When he finished the prayer, he would turn (his face from the direction of the Ka'bah).


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৫৭. ঘরে সলাত আদায়ের পর পুনরায় জামা‘আতে আদায় করা

৫৭৫। জাবির ইবনু ইয়াযীদ ইবনু আসওয়াদ তার পিতার সূত্রে বর্ণনা করে বলেন, তিনি যুবক বয়সে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সাথে সলাত আদায় করেন। সলাত শেষে দেখা গেল, দু’জন লোক সলাত আদায় না করে মাসজিদের কোণে বসে আছে। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাদেরকে ডাকলেন। তারা এরূপ অবস্থায় আসল যে, ভয়ে তাদের পাঁজরের গোশত কাঁপছিল। তিনি বললেনঃ আমাদের সাথে সলাত আদায় করতে কোন জিনিস তোমাদেরকে বাধা দিল? তারা বলল, আমরা তো ঘরে সলাত আদায় করেছি। তিনি বললেনঃ তোমরা এরূপ করবে না। তোমাদের কেউ ঘরে সলাত আদায়ের পর ইমামকে এসে সলাত আদায়রত পেলে সে যেন তার সাথে সলাত আদায় করে। যা তার জন্য নফল হিসেবে গণ্য হবে।[1]

সহীহ।

باب فِيمَنْ صَلَّى فِي مَنْزِلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ يُصَلِّي مَعَهُمْ

حَدَّثَنَا حَفْصُ بْنُ عُمَرَ، حَدَّثَنَا شُعْبَةُ، أَخْبَرَنِي يَعْلَى بْنُ عَطَاءٍ، عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ بْنِ الأَسْوَدِ، عَنْ أَبِيهِأَنَّهُ صَلَّى مَعَ رَسُولِ اللهِ صلي الله عليه وسلم وَهُوَ غُلَامٌ شَابٌّ فَلَمَّا صَلَّى إِذَا رَجُلَانِ لَمْ يُصَلِّيَا فِي نَاحِيَةِ الْمَسْجِدِ فَدَعَا بِهِمَا فَجِيءَ بِهِمَا تُرْعَدُ فَرَائِصُهُمَا فَقَالَ ‏"‏ مَا مَنَعَكُمَا أَنْ تُصَلِّيَا مَعَنَا ‏"‏ ‏.‏ قَالَا قَدْ صَلَّيْنَا فِي رِحَالِنَا ‏.‏ فَقَالَ ‏"‏ لَا تَفْعَلُوا إِذَا صَلَّى أَحَدُكُمْ فِي رَحْلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الإِمَامَ وَلَمْ يُصَلِّ فَلْيُصَلِّ مَعَهُ فَإِنَّهَا لَهُ نَافِلَةٌ ‏"‏ ‏.‏
صحيح


Narrated Yazid ibn al-Aswad: Yazid prayed along with the Messenger of Allah (ﷺ) when he was a young boy. When he (the Prophet) had prayed there were two persons (sitting) in the corner of the mosque; they did not pray (along with the Prophet). He called for them. They were brought trembling (before him). He asked: What prevented you from praying along with us? They replied: We have already prayed in our houses. He said: Do not do so. If any of you prays in his house and finds that the imam has not prayed, he should pray along with him; and that will be a supererogatory prayer for him.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৫৭. ঘরে সলাত আদায়ের পর পুনরায় জামা‘আতে আদায় করা

৫৭৬। জাবির ইবনু ইয়াযীদ (রহঃ) তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, আমি নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সাথে মিনাতে ফজরের সলাত আদায় করলাম ...... পূর্বোক্ত হাদীসের সমার্থক।[1]

সহীহ।

باب فِيمَنْ صَلَّى فِي مَنْزِلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ يُصَلِّي مَعَهُمْ

حَدَّثَنَا ابْنُ مُعَاذٍ، حَدَّثَنَا أَبِي، حَدَّثَنَا شُعْبَةُ، عَنْ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ، عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ، عَنْ أَبِيهِ، قَالَ صَلَّيْتُ مَعَ النَّبِيِّ صلي الله عليه وسلم الصُّبْحَ بِمِنًى بِمَعْنَاهُ ‏.‏

صحيح


Jabir b. Yazid reported on the authority of his father: I said the morning prayer along with the prophet (ﷺ) at Mina. He narrated the rest of the tradition to the same effect.


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭২. সালাম ফিরানোর পর মুক্তাদীদের দিকে ইমামের ঘুরে বসা

৬১৪। জাবির ইবনু ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ থেকে তার পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর পেছনে সলাত আদায় করেছি। তিনি সলাত শেষে (আমাদের দিকে) ফিরে বসতেন।[1]

সহীহ।

باب الإِمَامِ يَنْحَرِفُ بَعْدَ التَّسْلِيم

حَدَّثَنَا مُسَدَّدٌ، حَدَّثَنَا يَحْيَى، عَنْ سُفْيَانَ، حَدَّثَنِي يَعْلَى بْنُ عَطَاءٍ، عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ بْنِ الأَسْوَدِ، عَنْ أَبِيهِ، قَالَ صَلَّيْتُ خَلْفَ رَسُولِ اللهِ صلي الله عليه وسلم فَكَانَ إِذَا انْصَرَفَ انْحَرَفَ ‏.‏

- صحيح


Narrated Yazid ibn al-Aswad: Jabir ibn Yazid ibn al-Aswad reported on the authority of his father: I prayed behind the Messenger of Allah (ﷺ). When he finished the prayer, he would turn (his face from the direction of the Ka'bah).


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭৬. কোন ব্যক্তি একাকী (ফজরের) নামায পড়ার পর পুনরায় জামাআত পেল, সে যেন জামাআতে নামায পড়ে

১৫০২(১). আল-কাযী আল-হুসাইন ইবনে ইসমাঈল (রহঃ) ... জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ) থেকে তার পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বিদায় হজ্জে তাঁর সাথে ছিলাম। আমি তার সাথে মসজিদুল খায়েফ-এ ফজরের নামায পড়লাম। নামাযশেষে তিনি ঘুরে বসে দুইজন লোককে জামায়াতের শেষ প্রান্তে দেখতে পেলেন, যারা তার সাথে নামায পড়েনি। তিনি বললেনঃ এদের দু’জনকে আমার কাছে নিয়ে এসো। তাদেরকে নিয়ে আসা হলো এবং ভয়ে তাদের ঘাড়ের শির কাঁপছিল। তিনি জিজ্ঞেস করলেনঃ আমাদের সাথে নামায পড়তে তোমাদের উভয়কে কিসে বাধা দিলে? তারা বলল, ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমরা আমাদের অবস্থানস্থলে নামায পড়েছি। তিনি বললেনঃ তোমরা এরূপ করবে না। তোমরা তোমাদের অবস্থানস্থলে নামায পড়ার পর মসজিদে এসে জামাআত পেলে তাদের সাথে পুনরায় নামায পড়বে। এটা হবে তোমাদের উভয়ের জন্য নফল।

بَابُ مَنْ كَانَ يُصَلِّي الصُّبْحَ وَحْدَهُ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ فَلْيُصَلِّ مَعَهَا

ثَنَا الْقَاضِي الْحُسَيْنُ بْنُ إِسْمَاعِيلَ ، ثَنَا زِيَادُ بْنُ أَيُّوبَ وَعَلِيُّ بْنُ مُسْلِمٍ قَالَا : نَا هُشَيْمٌ ، ثَنَا يَعْلَى بْنُ عَطَاءٍ ، نَا جَابِرُ بْنُ يَزِيدَ بْنِ الْأَسْوَدِ عَنْ أَبِيهِ قَالَ : شَهِدْتُ مَعَ رَسُولِ اللَّهِ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - حَجَّتَهُ فَصَلَّيْتُ مَعَهُ صَلَاةَ الصُّبْحِ فِي مَسْجِدِ الْخَيْفِ فَلَمَّا قَضَى صَلَاتَهُ وَانْصَرَفَ فَإِذَا هُوَ بِرَجُلَيْنِ فِي آخِرِ الْقَوْمِ لَمْ يُصَلِّيَا مَعَهُ فَقَالَ : " عَلَيَّ بِهِمَا " . فَأُتِيَ بِهِمَا تَرْعُدُ فَرَائِصُهُمَا فَقَالَ : " مَا مَنَعَكُمَا أَنْ تُصَلِّيَا مَعَنَا " . قَالَا : يَا رَسُولَ اللَّهِ ، كُنَّا قَدْ صَلَّيْنَا فِي رِحَالِنَا. قَالَ : " لَا تَفْعَلَا إِذَا صَلَّيْتُمَا فِي رِحَالِكُمَا ثُمَّ أَتَيْتُمَا مَسْجِدَ جَمَاعَةٍ فَصَلِّيَا مَعَهُمْ فَإِنَّهَا لَكُمْ نَافِلَةٌ


হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭৬. কোন ব্যক্তি একাকী (ফজরের) নামায পড়ার পর পুনরায় জামাআত পেল, সে যেন জামাআতে নামায পড়ে

১৫০৪(৩). আবু বাকর আন-নায়সাপুরী (রহঃ) ... জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ) থেকে তার পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মিনায় ফজরের নামায পড়লেন। নামাযশেষে তিনি ঘুরে বসে লোকদের পিছনে দুই ব্যক্তিকে দেখতে পেলেন। তিনি তাদেরকে ডাকলেন, তাদেরকে নিয়ে আসা হলো এবং তাদের (উভয়ের) ঘাড়ের রগ কাঁপছিল। তিনি জিজ্ঞেস করলেন, লোকদের সাথে নামায পড়তে তোমাদের উভয়কে কিসে বাধা দিলো? তারা বলল, আমরা আমাদের অবস্থানস্থলে নামায পড়ে এসেছি। তিনি বললেন, এরূপ আর করবে না। তোমাদের কেউ অবস্থানস্থলে নামায পড়ার পর মসজিদে এসে ইমাম-এর সাথে জামাআতে নামায পেলে সে যেন তাদের সাথে পুনরায় নামায পড়ে। এটা হবে তার জন্য নফল।

بَابُ مَنْ كَانَ يُصَلِّي الصُّبْحَ وَحْدَهُ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ فَلْيُصَلِّ مَعَهَا

حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرٍ النَّيْسَابُورِيُّ ، ثَنَا عَبْدُ الرَّحْمَنِ بْنُ بِشْرِ بْنِ الْحَكَمِ ، ثَنَا عَبْدُ الرَّحْمَنِ بْنُ مَهْدِيٍّ ، ثَنَا سُفْيَانُ عَنْ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ بْنِ الْأَسْوَدِ عَنْ أَبِيهِ قَالَ : صَلَّى رَسُولُ اللَّهِ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - الْفَجْرَ بِمِنًى فَانْحَرَفَ ، فَرَأَى رَجُلَيْنِ مِنْ وَرَاءِ النَّاسِ فَدَعَا بِهِمَا فَجِيءَ بِهِمَا تَرْعُدُ فَرَائِصُهُمَا ، فَقَالَ : " مَا مَنَعَكُمَا أَنْ تُصَلِّيَا مَعَ النَّاسِ ؟ " . فَقَالَا : قَدْ كُنَّا صَلَّيْنَا فِي الرِّحَالِ . قَالَ : " فَلَا تَفْعَلَا ، إِذَا صَلَّى أَحَدُكُمْ فِي رَحْلِهِ ثُمَّ أَدْرَكَ الصَّلَاةَ مَعَ الْإِمَامِ فَلْيُصَلِّهَا مَعَهُ ، فَإِنَّهَا لَهُ نَافِلَةٌ


হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭৬. কোন ব্যক্তি একাকী (ফজরের) নামায পড়ার পর পুনরায় জামাআত পেল, সে যেন জামাআতে নামায পড়ে

১৫০৬(৫). আবু বাকর আন-নায়সাপুরী (রহঃ) ... জাবের ইবনে ইয়াযীদ (রহঃ) থেকে তার পিতার সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাথে নামায পড়লাম। (নামাযশেষে) তিনি মোড় ফিরে লোকদের এক প্রান্তে দুই ব্যক্তিকে দেখতে পেলেন। রাবী বলেন, তিনি তাদের ডাকলেন। তারা কাঁপতে কাঁপতে এলো। তিনি জিজ্ঞেস করলেন, তোমাদের কি হয়েছে যে, তোমরা আমাদের সাথে নামায পড়োনি? তারা বলল, ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমরা তাঁবুতে নামায পড়েছি। তিনি বলেনঃ আর এরূপ করো না। তোমাদের কেউ তার তাঁবুতে নামায পড়ে ইমামের কাছে এলে সে যেন তার সাথে পুনরায় নামায পড়ে এবং তার বাড়িতে পড়া নামাযকে নফল গণ্য করে।

আস-সাওরী (রহঃ)-এর সাথীগণ তার সাথে মতভেদ করেছেন। তাদের সঙ্গে ইয়া'লা ইবনে আতা (রহঃ)-এর সাথীগণও আছেন। তাদের মধ্যে আছেন শো'বা, হিশাম ইবনে হাসান, শারীক, গায়লান ইবনে জামে', আবু খালিদ আদ-দালানী, মুবারক ইবনে ফাদালা, আবু আওয়ানা, হুশায়েম প্রমুখ। তারা এই হাদীস ইয়া'লা ইবনে আতা (রহঃ) থেকে ওয়াকী ও ইবনে মাহদী (রহঃ)-এর হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করেছেন।

بَابُ مَنْ كَانَ يُصَلِّي الصُّبْحَ وَحْدَهُ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ فَلْيُصَلِّ مَعَهَا

ثَنَا أَبُو بَكْرٍ النَّيْسَابُورِيُّ ، ثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ أَحْمَدَ بْنِ الْجُنَيْدِ ، ثَنَا أَبُو عَاصِمٍ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ عَنْ أَبِيهِ قَالَ : صَلَّيْتُ مَعَ النَّبِيِّ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - فَلَمَّا انْصَرَفَ رَأَى رَجُلَيْنِ فِي مُؤَخَّرِ الْقَوْمِ - قَالَ : - فَدَعَا بِهِمَا فَجَاءَا تَرْعُدُ فَرَائِصُهُمَا فَقَالَ : " مَا لَكُمَا لَمْ تُصَلِّيَا مَعَنَا ؟ " . قَالَا : يَا رَسُولَ اللَّهِ ، صَلَّيْنَا فِي الرِّحَالِ . قَالَ : " فَلَا تَفْعَلَا ، إِذَا صَلَّى أَحَدُكُمْ فِي رَحْلِهِ ثُمَّ جَاءَ إِلَى الْإِمَامِ فَلْيُصَلِّ مَعَهُ ، وَلْيَجْعَلِ الَّتِي صَلَّى فِي بَيْتِهِ نَافِلَةً " . خَالَفَهُ أَصْحَابُ الثَّوْرِيِّ وَمَعَهُمْ أَصْحَابُ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ مِنْهُمْ شُعْبَةُ وَهِشَامُ بْنُ حَسَّانَ وَشَرِيكٌ وَغَيْلَانُ بْنُ جَامِعٍ وَأَبُو خَالِدٍ الدَّالَانِيُّ وَمُبَارَكُ بْنُ فَضَالَةَ وَأَبُو عَوَانَةَ وَهُشَيْمٌ وَغَيْرُهُمْ رَوَوْهُ عَنْ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ مِثْلَ قَوْلِ وَكِيعٍ وَابْنِ مَهْدِيٍّ


হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৭৬. কোন ব্যক্তি একাকী (ফজরের) নামায পড়ার পর পুনরায় জামাআত পেল, সে যেন জামাআতে নামায পড়ে

১৫০৮(৭). আবু বাকর আন-নায়সাপুরী (রহঃ) ... জাবের ইবনে ইয়াযীদ (রহঃ) তার পিতা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সূত্রে হুশায়েম (রহঃ)-এর উক্তির অনুরূপ বর্ণিত।

بَابُ مَنْ كَانَ يُصَلِّي الصُّبْحَ وَحْدَهُ ثُمَّ أَدْرَكَ الْجَمَاعَةَ فَلْيُصَلِّ مَعَهَا

حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرٍ النَّيْسَابُورِيُّ ، ثَنَا جَعْفَرُ بْنُ مُحَمَّدٍ الْخَفَّافُ ، ثَنَا الْهَيْثَمُ بْنُ جَمِيلٍ ، ثَنَا أَبُو عَوَانَةَ وَمُبَارَكُ بْنُ فَضَالَةَ عَنْ يَعْلَى بْنِ عَطَاءٍ عَنْ جَابِرِ بْنِ يَزِيدَ عَنْ أَبِيهِ عَنِ النَّبِيِّ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - مِثْلَ قَوْلِ هُشَيْمٍ


হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ
বর্ণনাকারীঃ জাবের ইবনে ইয়াযীদ ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
দেখানো হচ্ছেঃ 1 to 10 of 12 পাতা নাম্বারঃ 1 2 Next »