হাসান ইবনুল হুর (রহঃ) থেকে বর্ণিত হাদিস পাওয়া গেছে 2 টি

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. জারয (যিনার) সন্তানের মীরাছ

৩১৪২. হাসান ইবনুল হুর (রহঃ) হতে বর্ণিত, হাকাম বলেন, যিনার সন্তানকে যে তার সন্তান বলে দাবী করে, সে তার মীরাছ পাবে না, আর সে শিশুও তার (অভিযুক্ত পিতার) ওয়ারিস হবে না।[1]

باب فِي مِيرَاثِ وَلَدِ الزِّنَا

أَخْبَرَنَا أَبُو نُعَيْمٍ حَدَّثَنَا زُهَيْرٌ عَنْ الْحَسَنِ بْنِ الْحُرِّ حَدَّثَنِي الْحَكَمُ أَنَّ وَلَدَ الزِّنَا لَا يَرِثُهُ الَّذِي يَدَّعِيهِ وَلَا يَرِثُهُ الْمَوْلُودُ


হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)
বর্ণনাকারীঃ হাসান ইবনুল হুর (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. তাশাহ্‌হুদের বর্ণনা এবং তা পড়া ওয়াজিব এবং এ সম্পর্কে বিভিন্ন রিওয়ায়াত

১৩০৫(১১). আবু বাকর আন-নায়সাপুরী (রহঃ) ... আল-হাসান ইবনুল হুর (রহঃ) থেকে তার সূত্রে পূর্বোক্ত হাদীসের অনুরূপ বর্ণিত। এই হাদীস যুহাইর ইবনে মু'আবিয়া (রহঃ) আল-হাসান ইবনুল হুর (রহঃ) এর সূত্রে বর্ণনা করেছেন এবং শেষে আরো কিছু কথা যোগ করেছেন। তা হলোঃ তাঁর এই কথা, যখন তুমি এটা বললে বা করলে তখন তোমার নামায পূর্ণ করলে। এখন তুমি চলে যেতে চাইলে যেতে পারো এবং বসে থাকতে চাইলে বসতে পারো।

কতক রাবী যুহাইরের সূত্রে এ হাদীসের ভিতরে কিছু কথা অনুপ্রবেশ ঘটিয়েছেন এবং তাকে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কথার সাথে একাকার করেছেন। আর শাবাবা (রহঃ) যুহাইরের সূত্রে সেটাকে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কথা থেকে পৃথক করেছেন এবং তাকে আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাঃ)-র বক্তব্য হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।

যারা উপরোক্ত যোগকৃত কথাকে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাথে সম্পৃক্ত করেছেন তাদের তুলনায় শাবাবার কথাই যথার্থতার দিক থেকে সামঞ্জস্যপূর্ণ। কেননা ইবনে ছাওবান এই হাদীস আল-হাসান ইবনুল হুর (রহঃ) থেকে এভাবেই বর্ণনা করেছেন এবং হাদীসের শেষের বক্তব্যকে ইবনে মাসউদ (রাঃ)-র বক্তব্য হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। আরো এই যে, হুসাইন আল-জুফী, ইবনে আজলান ও মুহাম্মাদ ইবনে আবান (রহঃ) আল-হাসান ইবনুল হুর (রহঃ) সূত্রে তাদের বর্ণনায় হাদীসের শেষে এটা বর্জন করার উপর একমত হয়েছেন। এ ছাড়াও যারা আলকামা ও অন্যান্যের সূত্রে আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাঃ) থেকে তাশাহহুদ বর্ণনা করেন তারাও এই বিষয়ে একমত। আল্লাহ সর্বাধিক জ্ঞাত।

بَابُ صِفَةِ التَّشَهُّدِ وَوُجُوبِهِ وَاخْتِلَافِ الرِّوَايَاتِ فِيهِ

حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرٍ النَّيْسَابُورِيُّ ، ثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ عَبْدِ الْحَكَمِ ، ثَنَا حَجَّاجُ بْنُ رِشْدِينَ عَنْ حَيْوَةَ عَنِ ابْنِ عَجْلَانَ ، ح : وَحَدَّثَنَا أَبُو بَكْرٍ ، ثَنَا أَحْمَدُ بْنُ مَنْصُورٍ ، ثَنَا ابْنُ أَبِي مَرْيَمَ ، ثَنَا يَحْيَى بْنُ أَيُّوبَ ، حَدَّثَنِي ابْنُ عَجْلَانَ عَنِ الْحَسَنِ بْنِ الْحُرِّ بِإِسْنَادِهِ مِثْلَهُ. وَرَوَاهُ زُهَيْرُ بْنُ مُعَاوِيَةَ عَنِ الْحَسَنِ بْنِ الْحُرِّ فَزَادَ فِي آخِرِهِ كَلَامًا وَهُوَ قَوْلُهُ إِذَا قُلْتَ هَذَا - أَوْ فَعَلْتَ هَذَا - فَقَدْ قَضَيْتَ صَلَاتَكَ فَإِنْ شِئْتَ أَنْ تَقُومَ فَقُمْ وَإِنْ شِئْتَ أَنْ تَقْعُدَ فَاقْعُدْ. فَأَدْرَجَهُ بَعْضُهُمْ عَنْ زُهَيْرٍ فِي الْحَدِيثِ وَوَصَلَهُ بِكَلَامِ النَّبِيِّ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - وَفَصَلَهُ شَبَابَةُ عَنْ زُهَيْرٍ ، وَجَعَلَهُ مِنْ كَلَامِ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ مَسْعُودٍ ، وَقَوْلُهُ أَشْبَهُ بِالصَّوَابِ مِنْ قَوْلِ مَنْ أَدْرَجَهُ فِي حَدِيثِ النَّبِيِّ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - لِأَنَّ ابْنَ ثَوْبَانَ رَوَاهُ عَنِ الْحَسَنِ بْنِ الْحُرِّ كَذَلِكَ وَجَعَلَ آخِرَهُ مِنْ قَوْلِ ابْنِ مَسْعُودٍ ، وَلِاتِّفَاقِ حُسَيْنٍ الْجُعْفِيِّ وَمُحَمَّدِ بْنِ عَجْلَانَ وَمُحَمَّدِ بْنِ أَبَانٍ فِي رِوَايَتِهِمْ عَنِ الْحَسَنِ بْنِ الْحُرِّ عَلَى تَرْكِ ذِكْرِهِ فِي آخِرِ الْحَدِيثِ مَعَ اتِّفَاقِ كُلِّ مَنْ رَوَى التَّشَهُّدَ عَنْ عَلْقَمَةَ وَعَنْ غَيْرِهِ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ مَسْعُودٍ عَلَى ذَلِكَ. وَاللَّهُ أَعْلَمُ


হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ
বর্ণনাকারীঃ হাসান ইবনুল হুর (রহঃ)
পুনঃনিরীক্ষণঃ
দেখানো হচ্ছেঃ 1 to 2 of 2